খালেদার মুক্তিতে বিএনপির কৃতজ্ঞতা দেখানো উচিত: তথ্যমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেভাবে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়েছেন সেটি বাংলাদেশে নজিরবিহীন মন্তব্য করে তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ একইসঙ্গে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের সমালোচনা করেছেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি মহাসচিব যে ধরনের বক্তব্য দিচ্ছেন তা হাস্যকর। প্রধানমন্ত্রী মহানুভবতার যে পরিচয় দিয়েছে সেটি স্বীকার না করে যে বক্তব্য দিচ্ছেন সেটি ঠিক না। এরকম বক্তব্য দিলে ভবিষ্যতে বেগম জিয়াকে আবার কারাগারে পাঠানো হোক জনগণ থেকে দাবি উঠতে পারে। এজন্য বিএনপির প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা দেখানো উচিত।’

এর আগে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বেগম জিয়াকে অন্তরীণ করে রাখা হয়েছে। তিনি আরো বলেছেন, বিএনপি কখনো হত্যার রাজনীতিকে প্রশ্রয় দেয়নি। 

এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে চাইলে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘মির্জা ফখরুল সাহেবের বক্তব্যের মাধ্যমে এই প্রশ্নই আসে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তার যে ক্ষমতা বলে বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে মুক্তি দিয়েছেন...মির্জা ফখরুল ও তাদের অন্যান্য নেতারা যে কথাবার্তাগুলো বলছেন, এতে মনে হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী যে মহানুভবতা দেখিয়েছেন এটি না দেখালেই ভালো হতো।’

আজ রবিবার (২০ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

জিয়ার আমল থেকে হত্যার রাজনীতি শুরু হয়েছে দাবি করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, এখনো খালেদা ও তারেক তা অব্যাহত রেখেছে। তিনি বলেন, ‘বিএনপির রাজনীতি হত্যার রাজনীতির মাধ্যমে উন্মেষ। বঙ্গবন্ধু হত্যায় জিয়া এবং ২১ আগস্ট হত্যায় খালেদা ও তারেকের জড়িত থাকাই এটা প্রমাণ করে।’

সম্প্রতি হাটহাজারী মাদরাসার বিশৃঙ্খলা বিষয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, হাটহাজারী মাদরাসার বিশৃঙ্খলা অভ্যন্তরীণ বিষয়। আহমদ শফী অসুস্থ অবস্থায় হাটহাজারী মাদরাসায় যে বিশৃঙ্খলা হয়েছিল তাতে উনার মানসিক চাপ হয়েছিলো কি না সেটি চিকিৎসকরা বলতে পারবে।

সিনেমা হলগুলো খুলে দেয়ার বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘সিনেমা হল খোলার বিষয়ে হল মালিক ও সংশ্লিষ্টদের সাথে এ মাসের মধ্যেই বসে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh