করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে স্পেনে ফের জরুরি অবস্থা জারি

স্পেনে করোনাভাইরাস সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হওয়ায় কারফিউয়ের পাশাপাশি দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে।

গতকাল রবিবার (২৫ অক্টোবর) দেশব্যাপী দ্বিতীয়বারের মতো রাত্রিকালীন কারফিউ কার্যকরের ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ।

জরুরি অবস্থায় দেশটিতে রাত ১১টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত কারফিউ থাকবে। তবে ক্যানারি আইল্যান্ডকে এ নিষেধাজ্ঞার বাইরে রাখা হয়েছে।

টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশে দেয়া এক ভাষণে সানচেজ বলেন, রবিবার রাত থেকে এ পদক্ষেপ কার্যকর হবে। দেশজুড়ে ১৫ দিনের জন্য জরুরি অবস্থা ও কারফিউ জারি করা হয়েছে। তবে এ জরুরি অবস্থা ছয় মাসের জন্য বাড়িয়ে আগামী মে পর্যন্ত রাখার বিষয়টি পার্লামেন্টে তোলা হবে।

তিনি আরো বলেন, জরুরি অবস্থা জারির কারণে স্থানীয় প্রশাসন এক অঞ্চল থেকে অন্য অঞ্চলে লোকজনের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে পারবে।

এছাড়া নতুন বিধি-নিষেধের কারণে গণজমায়েত বা ব্যক্তিগত সাক্ষাতেও কিছু সীমাবদ্ধতা আরোপ করা হয়েছে। সর্বোচ্চ ছয়জন একসঙ্গে সমবেত হতে পারবেন।

মহামারির সময়ে স্পেনের সরকার ইতোমধ্যে দুইবার জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে। প্রথমটি গত মার্চ মাসে দেশব্যাপী ঘোষণা করা হয়। তবে সংক্রমণের হার কমে আসায় জুনে তা তুলে নেয়া হয়েছিল। আর রাজধানী মাদ্রিদে দুই সপ্তাহের জন্য আরোপিত জরুরি অবস্থা গত শনিবার শেষ হয়। 

লতি বছরের শুরুর দিকে করোনার প্রথম ধাক্কায় ইউরোপের সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর একটি হচ্ছে স্পেন। সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে স্পেনকে প্রথম থেকেই কঠোর লকডাউন জারি করতে হয়েছে যা বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় বেশি ছিল।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) দেশগুলোর মধ্যে প্রথম দেশ স্পেনে সরকারি হিসাব মতে, করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। তবে দেশটিতে করোনায় আক্রান্তের প্রকৃত সংখ্যা ৩০ লাখেরও বেশি বলে মনে করা হচ্ছে। শুক্রবার স্পেনে নতুন করে ২০ হাজার জনের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে এবং এ দিনে নতুন করে ২৩১ জনের মৃত্যুসহ মহামারিতে দেশটির মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৪ হাজার ৭৫২ জনে দাঁড়িয়েছে। -ইউএনবি ও বিবিসি

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh