মাদক নেয়ার অভিযোগ প্রমাণ হলে মুম্বাই ছাড়বেন কঙ্গনা

‘আমি নিয়মিত মাদক নেই- যদি এই তথ্যের সত্যতা প্রমাণিত হয়, তাহলে আমার যাবতীয় ভুল স্বীকার করে আমি মুম্বই থেকে চিরতরে বিদায় নেব।’

এমন চ্যালেঞ্জ জানালেন বলিউড কুইন কঙ্গনা রানাওয়াত।

মহারাষ্ট্র সরকারের সাথে ক্রমেই সংঘাত জোরাল হচ্ছে কঙ্গনার। তার অফিসে বৃহন্মুম্বই পুরনিগম জোর করে জবরদখল করেছে বলে অভিযোগ করলেন বলিউডের অভিনেত্রী। 

তিনি জানিয়েছেন, মণিকর্ণিকা ফিল্মসের প্রোডাকশন হাউস জোর করে দখলে নিয়ে মঙ্গলবারই তা ভেঙে গুঁড়িয়ে ফেলবে বিএমসি। মঙ্গলবার ফের শুরু হয় টুইট যুদ্ধ। 

মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখ মুম্বাই পুলিশের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন, কঙ্গনা মাদকাসক্ত। নিয়মিত মাদক নেন অভিনেত্রী।

এর পরিপ্রেক্ষিতে কঙ্গনা টুইটে লেখেন, আমি মুম্বাই পুলিশ ও অনিল দেশমুখের থেকেও বেশি খুশি হয়েছি আমার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ আনায়। আমার কল রেকর্ডস ঘেঁটে দেখা হোক, অনুগ্রহ করে আমার ড্রাগ টেস্ট হোক। খতিয়ে দেখা হোক কোন কোন মাদক পাচারকারীর সাথে আমার কথা হয়েছে। যদি কোনোরকম যোগসূত্র পাওয়া যায় তাহলে আমি আমার সব ভুল অপরাধ স্বীকার করবো ও চিরতরের জন্য মুম্বাই ছেড়ে যাব। মুম্বাই পুলিশের সাথে সাক্ষাতের জন্য আমি অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি।

এরপর তিনি আরো একটি টুইটে লেখেন, আমার ঘর ভাঙতে মরিয়া মুম্বাই পুলিশ। নতুন করে একটি মামলাও দায়ের করেছে। তবে জেনে রাখুন, অনেক কষ্ট করে অনেক ভালোবাসা দিয়ে আমি এ ঘর গড়েছি। কাজেই এ ঘর ভাঙলে আমি আরো দৃঢ় হয়ে উঠবো।


সোমবার আচমকা বিএমসির কর্মকর্তারা কঙ্গনার অফিসে পরিদর্শনে যান। সেখানে গিয়ে মাপামাপির করার পাশাপাশি তার অফিসের কর্মীদের হেনস্থাও করা হয় বলে অভিযোগ করেছেন কুইন অভিনেত্রী।

একটি ভিডিও শেয়ার করে তিনি লিখেছেন, এটা মুম্বাইয়ে মণিকর্ণিকা ফিল্মসের অফিস। যার জন্য ১৫ বছর ধরে আমি কঠোর পরিশ্রম করছি। আমার জীবনের একটাই স্বপ্ন ছিল, আমি যখন চিত্রনির্মাতা হবো, তখন আমার নিজের একটা অফিস থাকবে। কিন্তু মনে হচ্ছে, আমার সেই স্বপ্ন ভাঙার সময় হয়ে এসেছে। আজ হঠাত্‍‌ বিএমসির কিছু লোক সেখানে যায়। তারা জোর করে সেখানে জবরদখল নিয়ে গোটা অফিস মাপঝোঁক করে। প্রতিবেশীদের হেনস্থা করে। প্রতিবেশীরা এই কথা অন্যদের জানাতে গেলে, তাদের বলা হয়- ওই যে ম্যাডাম আছেন, তার কর্মের ফল সবাইকেই ভোগ করতে হবে। আমাকে জানানো হলো যে, কাল ওরা আমার সম্পত্তি ধ্বংস করে দেবে। -এই সময়

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh