রোববার,  ২৫ আগস্ট ২০১৯  | সময় লোডিং...
প্রকাশ : ৩১ জুলাই ২০১৯, ১৬:২৪:০৪

শাপলার রাজ্য ডিবির হাওর

ভ্রমণ ডেস্ক
প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি বাংলাদেশ। আর বাংলাদেশের সিলেট জেলা পাহাড়, ঝর্ণা, বিল ও নদীতে পূর্ণ। পান ও পানিতে খ্যাত সিলেটের উল্লেখযোগ্য একটি বিল হলো ডিবির হাওর। এটি লাল শাপলার বিল নামেও পরিচিত। এখানে রোজ সকালে হাজার হাজার লাল শাপলা ফোঁটে। লাল শাপলার বিল তথা ডিবির হাওরটি সিলেটের জৈন্তাপুরে অবস্থিত।
জৈন্তরাজ্যের রাজা রাম সিংহের স্মৃতিবিজড়িত ডিবির হাওর, ইয়াম, হরফকাটা কেন্দ্রী বিলসহ রয়েছে চারটি বিল। বিলগুলোকে কেন্দ্র করেই নাম করা হয়েছে ডিবির হাওর। লতা-পাতা-গুল্মে ভরা বিলের পানিতে হাজারো লাল শাপলা ফোটে। আর এগুলো হার মানায় ভোরের সূর্যের আলোকেও।
 
সবুজ পাতার আচ্ছাদনে ঢাকা পড়েছে বিস্তীর্ণ জলরাশি। ভোরের আলোয় শাপলার হাসি আরও আলোকিত করে দেয় বিলগুলোকে। প্রকৃতি যেন অপরূপ রূপে সাজিয়েছে এই বিল। বেড়াতে আসা যেকোনো ভ্রমণপিপাসুদের মনের দুয়ার খুলে দেবে এই শাপলা বিল।
 
লাল শাপলার অপরূপ সৌন্দর্য দেখতে হলে আপনাকে বিলে যেতে হবে খুব ভোরে। কারণ সূর্য ওঠার সাথে সাথে শাপলার সৌন্দর্য ম্লান হয়ে আসে। ডিবির হাওর দেখার পাশাপাশি আপনি সিলেটে দেখতে পাবেন নদী, পাহাড়, চা বাগান ও ঝর্ণা। তাই পরিবার ও বন্ধুদের নিয়ে সিলেট বেড়াতে গেলে হাতে সময় নিয়ে যাওয়া ভালো।
 
অপরূপ সৌন্দর্যের পাশাপাশি এখানে রয়েছে ইতিহাসও। রয়েছে স্বাধীন জৈন্তারাজ্যের রাজা বিজয় সিংহের সমাধিস্থল। পৌরাণিক ইতিহাস থেকে জানা যায়, ব্রিটিশ শাসিত ভারত উপমহাদেশের শেষ স্বাধীন রাজ্য ছিল জৈন্তাপুর। শ্রীহট্ট তথা ভারতবর্ষের অধিকাংশ এলাকা তখন মোঘলসাম্রাজ্যের। তখনো জৈন্তিয়া তার পৃথক ঐতিহ্য রক্ষা করে আসছিল। প্রায় ৩৫ বছর স্বাধীন রাজ্য হিসেবে পরিচালিত হয়। হিন্দু ধর্মগ্রন্থ রামায়নে জৈন্তিয়া রাজ্যের অনেক উল্লেখ আছে।
 
১৮৩৫ সালের ১৬ মার্চ হ্যারি নামক ইংরেজ রাজেন্দ্র সিংহকে কৌশলে বন্দি করে সব লুট করে নেয় রাজা বিজয় সিংহের রাজ্য থেকে। এই রাজ্যেরই স্মৃতি বিজড়িত ডিবির হাওর। পরে সেখানেই তার সমাধিস্থল হয়ে ওঠে। তাছাড়া এখানে রয়েছে প্রায় ২০০ বছরের প্রাচীন এক মন্দির। ইতিহাস থেকে জানা যায় জৈন্তার এক রাজাকে এখানে ডুবিয়ে হত্যা করা হয়। তার স্মৃতিতেই এই মন্দির তৈরী হয়।
 
যাওয়ার উপায়
প্রথমে বাংলাদেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে সিলেটে যেতে হবে। সিলেট থেকে সরাসরি সিলেট-তামাবিল সড়কপথে বাস, লেগুনা, সিএনজিচালিত অটোরিকশা অথবা প্রাইভেট কারে যেতে হবে জৈন্তাপুরে। জৈন্তাপুর বাজার থেকে কিছ দূর গেলেই সড়কের ডান দিকে দেখা যাবে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) ডিবির হাওর বিশেষ ক্যাম্প। ক্যাম্পের পাশ দিয়ে কাঁচা সড়কে এক কিলোমিটার পথ পাড়ি দিলেই পৌঁছে যাবেন শাপলার বিলে। নৌকার ভাড়া নেবে ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা। কাছাকাছি কোনো রেস্টুরেন্ট না থাকায় সঙ্গে শুকনো খাবার রাখতে পারেন। তবে খাবার শেষে পলিথিন ব্যাগ বা অন্য কিছু হাওরে ফেলবেন না।

 

এই পাতার আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Powered by orangebd.com