যেসব অবস্থায় আজানের জবাব দেয়া মানা

পাঁচ ওয়াক্তের আজানের জবাব দেয়া মোস্তাহাব। নারী-পুরুষ সকলের জন্যই এটি বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। যে অবস্থায় থাকুন না কেন এই মোস্তাহাব পালন করতে হবে। তবে এমন কিছু অবস্থা আছে, সে সময়গুলোতে আজানের জবাব দেয়ার বিধান নেই।

যে অবস্থাগুলোতে আযানের জবাব দেয়া ঠিক নয় সেগুলো হলো:

নামাজ পড়া অবস্থায়

কোনো কোনো নামাজের ওয়াক্ত শুরু হওয়ার অনেকক্ষণ পড় আজান দেয়া হয়। কিন্তু কোন ব্যক্তির জরুরি প্রয়োজন থাকে তাহলে ওয়াক্ত শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে নামাজ পড়ে নিতে পারেন। এই নামাজ অবস্থায় যদি আজান শুরু হয়ে যায়, তখন আজানের জবাব দেয়া যাবে না।

হায়েয অবস্থায়

ঋতুবতী মহিলাদের জন্য আজানের জবাব দেয়ার হুকুম নেই। এ অবস্থায় আজানের জবাব দেয়া যাবে না। 

নেফাসের অবস্থায়

সন্তান প্রসবের পর স্ত্রীলোকের গর্ভ থেকে রক্তস্রাব হয়, এই সময়টায় আজানের জবাব দেয়া যায় না।

দ্বীনি ইল্‌ম শিক্ষা দেয়ার সময়

দ্বীনি ইল্‌ম বা শরীয়তের মাসআলা-মাসায়েল শিখবার বা শিক্ষা দেয়ার সময় আজানের জবাব দেয়া যায় না। তবে কোরআন তেলাওয়াতের সময় আজান হলে তেলাওয়াত বন্ধ করে তার জবাব দেয়া উত্তম।

সহবাস অবস্থায়

সহবাস অবস্থায় আজান শুনলে তার জবাব দেয়া যাবে না। 

মলমূত্র ত্যাগের সময় 

পেশাব-পায়খানা করা অবস্থায় যদি কোনো ব্যক্তি আজান শোনেন তাহলে তার জবাব দেয়া যাবে না। 

মন্তব্য করুন

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

<