রোববার,  ১৮ আগস্ট ২০১৯  | সময় লোডিং...
প্রকাশ : ১২ আগস্ট ২০১৯, ১৩:২৯:০৫

কোরবানির মাংস কি বিক্রি করা যাবে?

অনলাইন ডেস্ক
ঈদুল আজহায় কোরবানি করা পশুর মাংস বিক্রি করার কোনও সুযোগ নেই। অভিজ্ঞ আলেমরা বলছেন, যিনি কোরবানি করবেন তিনি তার পশুর মাংস বিক্রি করতে পারবেন না। তবে কোরবানির মাংস কাউকে দান করা হলে তিনি কী করবেন, এ নিয়ে অবশ্য কোরবানিদাতার করণীয় কিছু নেই। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কোরবানি করা পশুর কোনও কিছু পারিশ্রমিক হিসেবে বিনিময় করা ইসলামে জায়েজ নয়। এর অর্থ হচ্ছে কোরবানির কাজে সহায়তাকারী কসাই ও তার লোকদেরও পারিশ্রমিক হিসেবে মাংস দেওয়া যাবে না।  
ইসলামি গবেষণা প্রতিষ্ঠান মারকাযুদ্ দাওয়াহ আল ইসলামিয়ার মাসিক গবেষণাপত্র আল কাউসারে এ বিষয়ে মাওলানা মুহাম্মাদ ইয়াহইয়া লিখেছেন, ‘মাসআলা : ৪৪. কুরবানির মাংস, চর্বি ইত্যাদি বিক্রি করা জায়েজ নয়। বিক্রি করলে পূর্ণ মূল্য সদকা করে দিতে হবে। -ইলাউস সুনান ১৭/২৫৯, বাদায়েউস সানায়ে ৪/২২৫, কাযীখান ৩/৩৫৪, আলমগীরী ৫/৩০১’।
মাওলানা জুনায়েদ আহমাদ ছিদ্দিক বলেন,‘আমরা কোরবানির মাংস আত্মীয়-স্বজন ও  দরিদ্রদের মাঝে বিতরণ করি। বিতরণ করার পর এই মাংসের মালিক তখন আর আমরা না, যাকে দেওয়া হলো তিনি মালিক।  মালিক হিসেবে এই মাংস তিনি যা খুশি করতে পারবেন।’
তিনি বলেন, ‘কোনও দরিদ্র ব্যক্তি হয়তো  ১০-১৫ কেজি মাংস দান হিসেবে পেলেন, তিনি তো একসঙ্গে সেই মাংস রান্না করতে পারবেন না। অথবা তার সংরক্ষণের ব্যবস্থা নাও থাকতে পারে। আবার শুধু মাংস নয় তার মশলা, চাল, ডালও লাগবে। সেক্ষেত্রে মাংস বিক্রি করে সে হয়তো সেই জিনিসপত্র সংগ্রহ করবে। তবে ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে মাংস সংগ্রহ করা অনুচিত কাজ।’
 
এই পাতার আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Powered by orangebd.com