রোববার,  ২৫ আগস্ট ২০১৯  | সময় লোডিং...
প্রকাশ : ০৬ আগস্ট ২০১৯, ১৬:০৫:০৫

সন্তানের আত্মবিশ্বাস বাড়াবেন যেভাবে

ডেস্ক রিপোর্ট
সন্তান তার জীবনের প্রতিটি শিক্ষা লাভ করে বাবা মায়ের কাছ থেকে। কিভাবে মানুষের সাথে আচরণ করতে হয়, কিভাবে যেকোনো প্রতিকূলতাকে অতিক্রম করতে হয় সে শিক্ষাও পায় পরিবার থেকে। আত্মবিশ্বাস অর্জনের শিক্ষাও তারা পরিবার থেকে পেয়ে থাকে। সন্তান আত্মবিশ্বাসী হলে সকল প্রকার ভয়, বাধাকে অতিক্রম করতে পারে। জীবনের প্রথম দিকেই সন্তানের আত্মবিশ্বাস বাড়াতে পারেন বাবা-মা, জানিয়েছেন সাইকোলজিস্ট কার্ল পিকহার্ট এবং টেরি অ্যাপটার।
 
সন্তানের আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর উপায় সম্পর্কে বিজনেস ইনসাইডারে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।
 
সন্তানের আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর উপায় সম্পর্কে জেনে নিন:
 
হার কিংবা জয়ে প্রশংসা করুন
সব ক্ষেত্রে সন্তান সফল হবে না তা স্বাভাবিক। সন্তান যদি কোনো কাজে হেরে যায় তাহলে তাকে তিরস্কার করবেন না। সন্তানের প্রচেষ্টার প্রশংসা করাটাই সবচেয়ে বড়। হারার কারণে তাকে লজ্জা না দিয়ে সে যে চেষ্টা করেছে তার জন্যই প্রশংসা করুন। এতে সে বারবার চেষ্টা করার উৎসাহ পাবে।
 
অনুশীলনের বিকল্প নেই
সন্তানের উৎসাহ যেখানেই হোক না কেন, খেলাধুলা বা পড়াশোনা- তাকে অনুশীলন করার উৎসাহ দিন। এতে সে ওই কাজে ভালো হয়ে উঠবে এবং আত্মবিশ্বাস বাড়বে। তাকে কখনোই বলবেন না এই কাজটা করো না, ওই কাজটা করো। তাকে নিরুৎসাহিত করলে সে মনে করবে আপনি তার ইচ্ছের মূল্য দিচ্ছেন না।
 
তার সমস্যা তাকেই সমাধান করতে দিন
আপনিই যদি সন্তানের সব কাজ করে দেন, তার সমস্যা সমাধান করে দেন তাহলে সে নিজে আর শেখার উৎসাহ পাবে না। সে নিজে একটা কাজ করতে পারে, এমন আত্মবিশ্বাসও পাবে না। সন্তানের বিদ্যালয়ের ফল কিছুটা খারাপ হোক কিংবা বাড়ির কাজের নম্বর কিছুটা কম পাক। আপনি তার কাজ তাকে করতে দিন। আপনি তাকে বাড়ির কাজ করে দিলে সে কখনোই বাড়ির কাজ করতে চাইবে না।
 
কৌতূহলী হতে দিন
শিশুর কৌতূহল থাকবে সেটা স্বাভাবিক। শিশুরা অনেক সময় একটানা প্রশ্ন করতে থাকলে অনেক বাবা-মা হয়রান হয়ে পড়েন। কিন্তু তাকে প্রশ্ন করতে নিরুৎসাহিত করবেন না বা বকা দিয়ে থামিয়ে দেবেন না। কারণ এসব প্রশ্ন শিশুর মানসিক বিকাশের জন্য জ্রুরি। তাকে বুঝতে দিন যে সে সব জানে না। এতে সে পৃথিবীর ব্যাপারে কৌতূহলী হয়ে উঠবে। তার আত্মবিশ্বাস, অধ্যাবসায় এবং প্রচেষ্টা বাড়বে।
 
নতুন নতুন চ্যালেঞ্জ দিন
তাকে নিজে নিজে বিভিন্ন কাজ করার প্রতি উৎসাহিত করুন। যেমন, সাইকেল চালানো। এলাকার বিভিন্ন দিকে একপাক ঘুরে আসতে বলুন। সে যদি এই কাজটি নিজে নিজে পারে তাহলে তার আত্মবিশ্বাস বাড়বে অনেকটাই।
 
সমালোচনা নয়
সন্তান যদি যেকোনো প্রচেষ্টায় আপনাকে সুখী করতে চায় তাকে সমালোচনা নয় বরঙ প্রশংসা করুন। সমালোচনা না করে তার কাজের ব্যাপারে ছোট ছোট উৎসাহমূলক মন্তব্য করলে সে খুশি হবে। সে যদি ভুল করে তাহলে তা সংশোধনের জন্য  তাকে উপদেশ দিন।
 
ব্যর্থতাই সফলতার চাবিকাঠি
ব্যর্থতা থেকে শিক্ষা গ্রহণ শিশুর আত্মবিশ্বাস বাড়ায়, কিন্তু তার জন্য বাবা-মাকেও চেষ্টা করতে হবে। সন্তান ব্যর্থ হলেও তাকে উৎসাহ দিতে হবে এবং এর থেকে শিক্ষা গ্রহণের পথ দেখাতে হবে তাকে। ব্যর্থতা মেনে নেওয়ার জন্য সন্তানকে সাহায্য করুন।
 
 নতুনত্ব শেখান
শিশুকে নতুন নতুন জিনিস শেখান, নতুন অভিজ্ঞতা গ্রহণ করতে দিন। তারা এতে প্রথম প্রথম ভয় পাবে এবং অস্বস্তিবোধ করবে। কিন্তু একবার তাতে অভ্যস্ত হয়ে গেলে তার আত্মবিশ্বাস বাড়বে। সে যখন নতুন একটি কাজ করবে বা একটি অভিজ্ঞতার স্বাদ নেবে। তার সাহসের প্রশংসা করুন।
 
সন্তানের হিরো হয়ে উঠুন
আপনি আত্মবিশ্বাসী হলে সন্তানও আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠবে। তার উদাহরণ হিসেবে নিজেকে উপস্থাপন করুন। তাহলেই আপনার মতোই হবে আপনার সন্তান।
 
 কঠোরতা নয়
বাবা-মা খুব বেশি কঠোর হলে, সন্তানের থেকে খুব বেশি আশা করলে তার আত্মবিশ্বাস বাড়ার বদলে কমে যায়। উল্টো সে বাবা-মায়ের আদেশের প্রতি নির্ভরশীল হয়ে পড়ে, নিজ থেকে কিছু করার সাহস পায় না। অভিভাবকের ভূমিকা পালন করুন, কিন্তু খুব কঠোর হওয়ার দরকার নেই। সে অবশ্যই শিশুর মতোই কাজ করবে। প্রাপ্তবয়স্কের মতো বুদ্ধি-বিবেচনা তার থেকে আশা করবেন না।
 
সন্তানকে বলবেন না আপনি তাকে নিয়ে চিন্তিত
সন্তানকে নিয়ে সব বাবা-মাই চিন্তা করেন। কিন্তু তার সামনে এই চিন্তা প্রকাশ করার দরকার নেই। ‘আমি তোমাকে নিয়ে চিন্তিত’, ‘তোমার যে কী হবে’, এ ধরণের কথায় সন্তান ভাবে, তাকে নিয়ে বাবা-মা খুব অসন্তুষ্ট। এতে তার আত্মবিশ্বাস কমে যায়। সে নিজেকে বোঝা ভাবতে শুরু করে।

 

এই পাতার আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Powered by orangebd.com