রোববার,  ২৫ আগস্ট ২০১৯  | সময় লোডিং...
প্রকাশ : ০৭ আগস্ট ২০১৯, ১৬:২৪:৪৬

শ্রীলংকান নাগরিক হত্যায় দুইজনের যাবজ্জীবন

নিজস্ব প্রতিবেদক
রাজধানীর শ্যামপুর এলাকায় ১৫ বছর আগে শ্রীলংকার নাগরিক সুহারা উম্মা হত্যা মামলায় দুজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া একজনকে খালাস দেওয়া হয়েছে। 
আজ বুধবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৯-এর বিচারক শেখ হাফিজুর রহমান এ রায় ঘোষণা করেন।
দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন−মফিজ উদ্দিন সরকার ওরফে মফিজ ও আবু জাহের ওরফে জাহের খান। কারাদণ্ডের পাশাপাশি তাদের প্রত্যেককে ৩০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড করেছেন আদালত। অর্থদণ্ড অনাদায়ে তাদের আরো ছয় মাসের সশ্রম কারাভোগের আদেশ দেওয়া হয়েছে।
তবে আসামিরা পলাতক থাকায় তাদের বিরুদ্ধে সাজা পরোয়ানাসহ গ্রেফতারি পরোয়ানা ইস্যু করা হয়েছে। অপর এক আসামি আবুল হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়া আদালত তাকে খালাস দেন।
রায়ে আদালত বলেন, আসামিদের সরাসরি জড়িত থাকায় এবং শ্বাসরোধ করে হত্যার ঘটনা প্রমাণ হওয়ায় আসামিদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হলো। তবে মামলার অভিযোগে ধর্ষণের বিষয়টি প্রমাণিত হয়নি।
মামলার অভিযোগে বলা হয়, জহিরুল ইসলাম ওরফে হাফিজ কুয়েত থাকাকালে শ্রীলংকার নাগরিক সুহারা উম্মার সঙ্গে পরিচয় হয়। পরে তাঁরা বিয়ে করেন। তাঁদের একটি ছেলেসন্তান রয়েছে। এরপর থেকে সুহারা উম্মা তাঁর ছেলে শাকিলকে নিয়ে শ্যামপুরের জিয়া সরণি গ্যাস রোডে বসবাস করতেন। ২০০৪ সালের ২৭ জানুয়ারি সন্ধ্যায় সুহারা উম্মার বাসায় তাঁদের ভাড়াটিয়া আবুল হোসেনের ভায়রা মফিজ ও তার এক বন্ধু যায়। পরে সুহারা উম্মাকে তারা শ্বাসরোধ করে হত্যা করে।
ওই ঘটনায় তাঁর দেবর আব্বাস আলী ২০০৪ সালের ২৮ জানুয়ারি শ্যামপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। 
মামলা তদন্ত কর্মকর্তা শ্যামপুর থানার উপপরিদর্শক সোহেল আহমেদ তিনজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। আর ফজুলল হক সরকার ওরফে হান্নান নামের এক আসামিকে অব্যাহতির আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা। মামলাটি বিচার চলাকালে ২২ সাক্ষীর মধ্যে বিভিন্ন সময়ে ১২ জন আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন।
এই পাতার আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Powered by orangebd.com