শনিবার,  ১৭ আগস্ট ২০১৯  | সময় লোডিং...
প্রকাশ : ০৬ আগস্ট ২০১৯, ১৪:২২:৫০

চট্টগ্রাম কাস্টমসে অনিয়মের অভিযোগে ১৮ মামলা দুদকের

প্রতিনিধি, চট্টগ্রাম
ঘুষ লেনদেন ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে চট্টগ্রাম কাস্টমসের ২৪ কর্মকর্তা, কর্মচারী ও আমদানিকারকদের বিরুদ্ধে ১৮টি মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।
আজ মঙ্গলবার দুদকের প্রধান কার্যালয় থেকে মামলাগুলো করা হয়েছে। দুদকের উপপরিচালক ও জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
তিনি জানান, চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসে সীমাহীন দুর্নীতি ও অনিয়ম উদ্ঘাটন হওয়ায় এ মামলাগুলো করা হয়েছে। মামলাগুলোতে কাস্টমস অফিসার, কাস্টমস কমর্চারী ও আমদানিকারক রয়েছেন।
আসামিরা হলেন- শফিউল আলম (অব.রাজস্ব কর্মকর্তা), হুমায়ুর কবির (অব. রাজস্ব কর্মকর্তা), নিজামুল হক (অব. রাজস্ব কর্মকর্তা), সৈয়দ হুমায়ুন আখতার (অব. রাজস্ব কর্মকর্তা), সফিউল আলম (অব. রাজস্ব কর্মকর্তা), কাসিফ ফোরকান (প্রোপাইটর-মেসার্স গ্যাবী ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল), হারুন শাহ (স্বত্বাধিকারী এমআর কর্পোরেশন), আবুল হাসনাত সোহাগ, মমিনুল ইসলাম, মির্জা মোহাম্মদ আহসানুজ্জামান, এমএ আলীম, মোহাম্মদ মুসা ভূঁইয়া, মইনুল আলম চৌধুরী, হাজী ফোরকান আহমেদ,  সাইফুর রহমান, মোহাম্মদ নুরুল আলম, জহিরুল ইসলাম, রুবেল আহমেদ, আইনুল হক, সাহিদুর রহমান, সাইফুল ইসলাম, ফাহাদ আবেদীন সোহান ও জোতিময় সাহা।
দুদকের চট্টগ্রাম-১ এর উপপরিচালক মোহাম্মদ লুৎফুল কবির চন্দন বলেন, ২০১০-১১ সালে আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে মিথ্যা ঘোষণা দিয়ে আনা পণ্য প্রতারণা ও জালিয়াতির মাধ্যমে পণ্য খালাস করে মোট দুই কোটি ৬৬ লাখ ২৯ হাজার টাকা কাস্টমস ডিউটি ফাঁকি দেয়। 
তিনি বলেন, আসামিদের মধ্যে কাস্টমসের বেশ কয়েকজন সাবেক রাজস্ব কর্মকর্তাও রয়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের স্বার্থে দুদক মামলা দায়ের করেছে।
এই পাতার আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Powered by orangebd.com