সোমবার,  ১৯ আগস্ট ২০১৯  | সময় লোডিং...
প্রকাশ : ১৪ আগস্ট ২০১৯, ১১:২১:৪৮

১৫ আগস্টের পর কারফিউ উঠতে পারে কাশ্মীরে

ডেস্ক রিপোর্ট
ভারতশাসিত জম্মু ও কাশ্মীরে বড় কোনো উত্তেজনা ছাড়াই কেটেছে ঈদ। এবার স্বাধীনতা দিবস ভালয়-ভালয় কাটলে উপত্যকায় জেলাভিত্তিক কারফিউ প্রত্যাহারের পরিকল্পনা নিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। ধাপে ধাপে ফেরানো হবে মোবাইল ও ইন্টারনেট পরিষেবা।
আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় সূত্রে খবর, এ মাসের মধ্যেই উপত্যকায় স্বাভাবিক অবস্থা ফেরাতে চাইছে সরকার। ১২-১৪ অক্টোবর কাশ্মীরে প্রথম আন্তর্জাতিক বিনিয়োগ সম্মেলন করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। মাঝে এক মাস। তাই দ্রুত কারফিউ তুলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে চাইছে নয়াদিল্লি।
এরই মধ্যে আগের অবস্থান পাল্টে কেন্দ্র মেনে নিয়েছে, গত শুক্রবার নামাজের পরে শ্রীনগরের শৌরায় স্থানীয় মানুষ ও পুলিশের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। পুলিশকে লক্ষ্য করে ছোড়া হয় ইট-পাথর। শুক্রবার সন্ধ্যায় ওই ভিডিও একটি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে দেখানো হলে শনিবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় দাবি করে, খবরটি ভুয়ো। সোমবারও এ নিয়ে টুইট-যুদ্ধ চলে মন্ত্রণালয় ও ওই সংবাদমাধ্যমের। 
পরে গতকাল মঙ্গলবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় জানায়, ‘সে দিন নামাজিদের ভিড়ে দুষ্কৃতীরা মিশেছিল। তারাই পাথর ছুড়লে বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে উত্তেজনা শুরু হয়।’ তবে কেন্দ্র দাবি করেছে, ‘শুক্রবারের বিক্ষোভ মোকাবেলায় গুলি বা ছররা বন্দুক চালানো হয়নি।’
এদিকে মঙ্গলবার উপত্যকার পরিস্থিতি ছিল অপেক্ষাকৃত শান্ত। সকালের দিকে কার্ফু শিথিল করে প্রশাসন। শ্রীনগর প্রশাসন জানিয়েছে, উপত্যকার বিভিন্ন প্রান্তে চলছে স্বাধীনতা দিবসের প্রস্তুতি। অমিত শাহ ১৫ আগস্ট শ্রীনগরের লালচকে পতাকা তুলবেন বলে জল্পনা ছড়ালেও মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত এমন পরিকল্পনা নেই। 
পরিস্থিতি বুঝতে মঙ্গলবারও পথে নামেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল। যান সিআরপিএফ ছাউনিতে। সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়তও দাবি করেন, ‘কাশ্মীরিদের সঙ্গে সেনার সুসম্পর্ক অটুট রয়েছে। সত্তর বা আশির দশকে যেভাবে সেনারা খালি হাতেই কাশ্মীরিদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখত, আশা করছি, ভবিষ্যতেও সেই ছবি দেখা যাবে।’
কাশ্মীরে কারফিউ প্রত্যাহারের দাবিতে সুপ্রিম কোর্টে হওয়া মামলায় এখনই সরকারকে কোনো আদেশ দিতে রাজি হয়নি বিচারপতি অরুণ মিশ্রের তিন সদস্যের বেঞ্চ। অ্যাটর্নি জেনারেল কে বেণুগোপাল জানান, পরিস্থিতি অনুযায়ী ধীরে ধীরে কার্ফু তুলে নেওয়া হবে। তারপরেই কেন্দ্রকে কিছু দিন সময় দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় আদালত। দু’সপ্তাহ পরে ফের শুনানি।
 
 
এই পাতার আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Powered by orangebd.com