শনিবার,  ১৭ আগস্ট ২০১৯  | সময় লোডিং...
প্রকাশ : ১৬ জুলাই ২০১৯, ১১:১৫:৩৯

ইরানের চুক্তি লঙ্ঘন গুরুতর নয়: মোগেরিনি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
ইরান সম্প্রতি যে পরমাণু চুক্তি লঙ্ঘন করেছে তা গুরুতর নয় এবং সেটি পুনরায় সংশোধন করা যাবে বলে জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান ফেডেরিকা মোগেরিনি। তিনি বলেন, আমরা ইরানকে তার সাম্প্রতিক পদক্ষেপ থেকে সরে আসতে এবং পরমাণু চুক্তি সম্পূর্ণ মেনে চলতে আহ্বান জানাচ্ছি। 
বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে ইইউয়ের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের এক বৈঠকের পর স্থানীয় সময় গতকাল সোমবার রাতে এ আহ্বান জানান। বৈঠকে ইরানের সঙ্গে পরমাণু শক্তিধর দেশগুলোর উত্তেজনা নিরসন ও দেশগুলোর পরমাণু চুক্তি বহাল রাখার বিষয় প্রাধান্য পায়।
বৈঠক শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে মোগেরিনি বলেন, পরমাণু সমঝোতার কোনো বিকল্প কারো কাছে নেই এবং এটি রক্ষা করলে সবার স্বার্থ রক্ষিত হবে।  
পরমাণু সমঝোতা থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বেরিয়ে যাওয়া এবং ইউরোপের পক্ষ থেকে এ সমঝোতা বাস্তবায়নে ব্যর্থতার প্রতিবাদে ইরান সম্প্রতি এর কিছু ধারা থেকে সরে আসার যে পদক্ষেপ নিয়েছে সে সম্পর্কেও কথা বলেন মোগেরিনি। 
তিনি বলেন, ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের বিষয়ে সমঝোতা অনুযায়ী পদক্ষেপ নিতে এবং সমঝোতা লঙ্ঘিত হয় এমন পদক্ষেপ থেকে সরে আসতে আমরা ইরানকে আহ্বান জানাই।
মোগেরিনি বলেন, প্রকৃতপক্ষে এই চুক্তির পর পরমাণু শক্তিধর দেশগুলো এখন পর্যন্ত যে সব পদক্ষেপ নিয়েছে এবং তাদের যে সব পদক্ষেপ নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে, এগুলোর সবই সংশোধনযোগ্য। চুক্তিতে স্বাক্ষরকারী দেশগুলো ইরানের এই পদক্ষেপকে এখনো গুরুতর লঙ্ঘন বলে মনে করছে না। তাই তারা এমন কোনো বিরোধে জড়াবে না, যাতে ভবিষ্যতে আরও কোনো ধরনের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে হয়।
যুক্তরাষ্ট্র ও তিন ইউরোপীয় দেশসহ ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে ২০১৫ সালে ইরান যে পরমাণু সমঝোতা সই করেছিল তা থেকে ২০১৮ সালের মে মাসে বেরিয়ে যায় ওয়াশিংটন। এরপর যুক্তরাষ্ট্রকে ছাড়াই এ সমঝোতা বাস্তবায়ন করার ঘোষণা দেয় ইউরোপীয় তিন দেশ ব্রিটেন, ফ্রান্স ও জার্মানি। কিন্তু মৌখিক ঘোষণা ছাড়া এসব দেশ এখন পর্যন্ত এ সমঝোতা রক্ষার্থে কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেনি।
এর প্রতিবাদে ইরান সম্প্রতি ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের মাত্রা ৩ দশমিক ৬৭ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৪ দশমিক ৫ মাত্রায় উন্নীত করে। তেহরান বলেছে, আগামী ৬০ দিনের মধ্যে ইউরোপীয়রা তাদের প্রতিশ্রুতি রক্ষায় ব্যর্থ হলে এই মাত্রা পরমাণু সমঝোতা স্বাক্ষরের আগের অবস্থায় অর্থাৎ, ২০ শতাংশে উন্নীত করা হবে। 
ইরান বলছে, চুক্তি থেকে সরে গিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ইরানের উপর নতুন করে যে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে তাতে দেশটির অর্থনীতি ক্ষতির মুখে পড়ছে। ইউরোপ এই ক্ষতি পুষিয়ে দিলে ইরান চুক্তি মেনে চলবে বলে জানিয়েছে।
ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জ্যঁ-ইভ লে দ্রিয় বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্তের কারণে ইরানের চুক্তি ভঙ্গ করা ‘একটি খারাপ সিদ্ধান্তের খারাপ প্রতিক্রিয়া'। ব্রিটেন, ফ্রান্স ও জার্মানি রবিবার এক যৌথ বিবৃতিতে ইরানের চুক্তি ভঙ্গের খবরে ‘গভীর উদ্বেগ'  প্রকাশ করেছে।
সোমবারের বৈঠকে ইরানের উপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞাকে পাশ কাটিয়ে দেশটির সঙ্গে বাণিজ্য করা নিয়ে আলোচনা করেন ইইউ মন্ত্রীরা।
জার্মানিসহ ১০টি ইউরোপীয় দেশ ইতোমধ্যে এমন এক পন্থায় বাণিজ্য করতে একমত হয়েছে। এই ব্যবস্থার নাম ‘ইনস্ট্রুমেন্ট ইন সাপোর্ট অফ ট্রেড এক্সচেঞ্জেস' বা ইনসটেক্স। এটি একটি বিনিময় পদ্ধতি। অর্থাৎ, মুদ্রার মাধ্যমে পণ্য বেচাকেনা না করে অতীতের মতো পণ্য বিনিময় করার পন্থা হচ্ছে ইনসটেক্স।- বিবিসি, পার্সটুডে ও ডয়চে ভেলে
এই পাতার আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Powered by orangebd.com