রোববার,  ১৮ আগস্ট ২০১৯  | সময় লোডিং...
প্রকাশ : ১১ আগস্ট ২০১৯, ১০:১৯:১৪

পশুর চামড়া সংগ্রহে ১১ পরামর্শ বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের

ডেস্ক রিপোর্ট
কোরবানির পশুর চামড়া সঠিকভাবে সংগ্রহে ১১ দফা পরামর্শ দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। ‘রফতানির জন্য প্রয়োজন, টেকসই চামড়া আহরণ’- এই শ্লোগান সামনে রেখে এসব পরামর্শ মেনে চামড়া সংগ্রহের জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।  
তথ্য অধিদফতরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে গতকাল শনিবার এ কথা জানানো হয়েছে।
এবারের কোরবানিতে গরুর কাঁচা চামড়া প্রতি বর্গফুট সর্বোচ্চ ৪৫ থেকে ৫০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রতিবারের মতো এবারো কোরবানির পশুর চামড়ার ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করতে আন্তর্জাতিক ও স্থানীয় বাজার দর বিবেচনায় রেখে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এ দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে।
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নির্ধারিত মূল্য অনুযায়ী গরুর কাঁচা চামড়ার মূল্য রাজধানীতে প্রতি বর্গফুট ৪৫ থেকে ৫০ টাকা, ঢাকার বাইরে প্রতি বর্গফুট ৩৫ থেকে ৪০ টাকা। খাসির কাঁচা চামড়ার মূল্য সারা দেশে ১৮ থেকে ২০ টাকা ও বকরির কাঁচা চামড়ার মূল্য হবে সারা দেশে ১৩ থেকে ১৫ টাকা।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দেশের চাহিদার প্রায় ৮০ ভাগ চামড়া কোরবানির পশু থেকে সংগ্রহ করা হয়। কোরবানির পশুর চামড়া সংগ্রহে অধিক সতর্কতা অবলম্বন করা একান্ত প্রয়োজন, যাতে চামড়ার কোনো ক্ষতি না হয়। কোরবানির সময় অসর্তকতা বা না-জানার কারণে বছরে প্রায় ৩৩০ কোটি টাকার চামড়া নষ্ট হয়। টেকসইভাবে পশুর চামড়া আহরণ ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা খুবই জরুরি।
বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, সরকারের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বাংলাদেশ লেদার সার্ভিস সেন্টার নামক একটি প্রকল্পের মাধ্যমে কোরবানির চামড়া সংগ্রহের জন্য সচেতনতা সৃষ্টির উদ্দেশে একটি ভিডিও চিত্রসহ প্রয়োজনীয় প্রচার চালিয়ে যাচ্ছে।
পশুর চামড়া অক্ষত ও মান অক্ষুন্ন তথা টেকসই চামড়া আহরণে ১১টি বিষয় বিবেচনায় রাখা প্রয়োজন বলে এ প্রকল্প থেকে অনুরোধ করা হয়েছে।
এতে দেওয়া ১১টি পরার্মশ হলো:
১. কোরবানির আগে পশুকে ভালোভাবে গোসল করিয়ে শুকিয়ে নিতে হবে;
২. পশুকে প্রচুর পরিমাণে পানি খাওয়াতে হবে;
৩. পরিষ্কার ও সমতল স্থানে জবাই করতে হবে, যাতে চামড়ায় ময়লা না লাগে;
৪. জবাই করার স্থানে পশুর রক্ত গড়িয়ে যাওয়ার জন্য গর্ত করতে হবে এবং পরে সেটি ভালোভাবে মাটি দিয়ে ঢেকে দিতে হবে;
৫. পশুকে পা বেঁধে সাবধানে শোয়াতে হবে;
৬. জবাইয়ের পর পশু নিস্তেজ হওয়ার পর চামড়া ছাড়ানো শুরু করতে হবে;
৭. চোখা মাথার ধারালো ছুরি দিয়ে পশুর বুকের ওপর দিয়ে লেজের গোড়া পর্যন্ত লম্বালম্বিভাবে এবং এক পা থেকে অন্য পা পর্যন্ত চামড়া ফারতে হবে;
৮. বাঁকানো মাথার ধারালো ছুরি দিয়ে পশুর দেহ থেকে চামড়া ছাড়াতে হবে। চোখা মাথার ছুরি দিয়ে চামড়া ছাড়ানো যাবে না। এতে চামড়া ফুটো হয়ে যেতে পারে;
৯. চামড়া ছাড়াতে তাড়াহুড়ো করা যাবে না। স্বাভাবিক গতিতে চামড়া ছাড়াতে হবে;
১০. চামড়া টানাহেঁচড়া না করে বালতি বা পাত্রে নিতে হবে এবং রোদ কিংবা বৃষ্টি নেই— এমন শুকনো জায়গায় খোলা অবস্থায় রাখতে হবে। চামড়ায় রক্ত লাগলে তা দ্রুত ধুয়ে ফেলতে হবে এবং
১১. চামড়া বিক্রি করতে দেরি হলে যথাযথ প্রক্রিয়ায় লবণ দিয়ে রাখতে হবে।
এই পাতার আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Powered by orangebd.com