শনিবার,  ১৭ আগস্ট ২০১৯  | সময় লোডিং...
প্রকাশ : ০৪ আগস্ট ২০১৯, ১৬:৩৮:৫৭

তীব্র মাথা ব্যথা স্ট্রোকের লক্ষণ

ডেস্ক রিপোর্ট
মস্তিষ্কে রক্ত প্রবাহের পরিমাণ আকস্মিকভাবে হ্রাস পাওয়াকে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ বা ব্রেইন স্ট্রোক বলা হয়। স্ট্রোক হলে ব্রেন ড্যামেজ, প্যারালাইসিস এমনকি রোগীর মৃত্যুও হতে পারে। মস্তিষ্কের ভেতরে রক্তের শিরায় রক্ত জমাট বাধার ফলে অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেলে স্ট্রোক হয়। স্ট্রোক গুরুতর একটি স্বাস্থ্য সমস্যা। আর এমনটা ঘটলে রোগীকে দ্রুত হাসপাতাল ও চিকিৎসকের কাছে নেওয়া জরুরি। তাই স্ট্রোকের প্রাথমিক কিছু লক্ষণ জানা থাকলে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাওয়া সহজ হয়। জেনে নিন স্ট্রোকের লক্ষণসমূহ সম্পর্কে।
 
তীব্র মাথাব্যথা
তীব্র মাথাব্যথা স্ট্রোকের লক্ষণ।  আপনি যদি আগের যেকোনো মাথা ব্যথার তুলনায় অনেক বেশি মাথা ব্যথায় আক্রান্ত হন তাহলে বুঝতে হবে আপনি স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়েছেন। আর এই ব্যথা যেকোনো ব্যথার চেয়ে তীব্র হয়। এমতাবস্থায় যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত। 
 
মুখের অর্ধেক অসাড় হয়ে পড়া
স্ট্রোকের অন্যতম লক্ষণ হলো মুখের অর্ধেক অসাড় হয়ে যাওয়া। আপনি যদি হঠাৎ করেই হাসার সময় মুখের অর্ধেক নাড়াতে না পারেন বা মুখের অর্ধেক পুরোপুরি অসাড় হয়ে পড়ে তাহলে বুঝবেন এটি স্ট্রোকের স্পষ্ট  লক্ষণ। যখন মুখের মাংসপেশিতে রক্ত সরবরাহকারী স্নায়ুগুলোর অক্সিজেন সরবরাহ কমে যায় তখন এমনটি ঘটে। 
 
কথা জড়িয়ে যাওয়া
যদি হঠাৎ করেই কথা বলার সময় অস্পষ্ট আওয়াজ করতে থাকেন কিংবা কথা বলার সময় কথা জড়িয়ে যায় তাহলে বুঝবেন এটি স্ট্রোকের লক্ষণ। এটি ঘটে আপনার মস্তিষ্কের কথা বলা এবং যোগাযোগের কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণকারী অংশে রক্ত সরবরাহ বন্ধ হয়ে যাওয়ার ফলে।  এমন হলে সঙ্গে সঙ্গেই হাসপাতালে গিয়ে ডাক্তার দেখান। আর নয়তো কথা বলার শক্তি চিরতরে হারিয়ে যাবে।
 
পিন বা সুচ ফোটার অনুভূতি
দীর্ঘক্ষণ বসে বা শুয়ে থাকার কারণে বাহুতে এবং পায়ে যদি সুচ বা পিন ফোটার অনুভূতি হয় তাহলে তা স্ট্রোকের লক্ষণ নয়। কিন্তু আপনি যদি আগে কখনো সুচ বা পিন ফোটার অনুভূতি হয়নি এমন কোনো তৎপরতার মাঝখানে হঠাৎ করেই পিন বা সুচ ফোটার অনুভূতি পান তাহলে তা নিশ্চিতভাবেই স্ট্রোকের লক্ষণ।
 
মাংসপেশিতে খিল ধরা
আপনার মাংসপেশির স্নায়ুগুলোর রক্ত সরবরাহ যদি বন্ধ হয়ে যায় তাহলে আপনার দেহের এক বা একাধিক জায়গায় মাংসপেশি শক্ত হয়ে আসবে। দেহের যেকোনো অর্ধেক অংশেই সাধারণত এমনটা ঘটে থাকে। 
 
ঝাপসা দৃষ্টি
স্ট্রোকের আরেকটি লক্ষণ হলো আপনার কোনো একটি চোখের দৃষ্টি ঝাপসা হয়ে আসা। মস্তিষ্কের যে অংশ আপনার দৃষ্টি সম্বন্ধীয় কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ করে সে অংশে অক্সিজেন সরবরাহ কমে যাওয়ার ফলে এমনটা ঘটতে পারে।
 
হঠাৎ ঝিমুনি
এটি স্ট্রোকের আরেকটি লক্ষণ। মস্তিষ্কের একটি অংশে রক্তসরবরাহ বন্ধ হয়ে গেলে এমনটা ঘটে।
 
আচরণগত পরিবর্তন
মস্তিষ্কই যেহেতু আমাদের আচরণ নিয়ন্ত্রণ করে সেহেতু স্ট্রোকে আক্রান্ত হলে লোকের অস্বাভাবিক রাগ, উদ্বেগ এবং ভ্যাবাচেকা খাওযার মতো সমস্যা দেখা দেয়। এমনকি স্ট্রোক থেকে বেঁচে যাওয়ার পরও এমন সব সমস্যায় স্থায়ীভাবে আক্রান্ত হতে পারেন।
এই পাতার আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Powered by orangebd.com