শনিবার,  ১৭ আগস্ট ২০১৯  | সময় লোডিং...
প্রকাশ : ১৫ জুলাই ২০১৯, ১৬:৫৫:০৯

শিক্ষা টিভির চিন্তাভাবনা চলছে: শিক্ষামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
শিক্ষা টিভির মাধ্যমে ভালো মানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ভালো শিক্ষকদের ক্লাস প্রত্যন্ত অঞ্চলের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দেখানোর চিন্তাভাবনা চলছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি। 
আজ সোমবার সচিবালয়ে জেলা প্রশাসক সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত আলোচনায় ডিসিদের এই চিন্তার কথা জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।
জেলা প্রশাসক সম্মেলন উপলক্ষে ডিসিদের পক্ষ থেকে আগেই ৩৩৩টি প্রস্তাব পাঠানো হয়েছিল। তার মধ্যে একটি ছিল শহরাঞ্চলে অবস্থিত সেরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের গ্রামাঞ্চলের স্কুলগুলোয় অতিথি শিক্ষক হিসেবে পাঠানো। আলোচনা শেষে এ বিষয়ে সাংবাদিকেরা জানতে চাইলে শিক্ষামন্ত্রী তাঁদের এ চিন্তার কথা জানান।
দীপু মনি বলেন, ‘আমরা বলেছি, তার চেয়ে বরং খুব কম খরচে টিভি চ্যানেলের মাধ্যমে ভালো বিদ্যালয়ের ভালো শিক্ষকদের ক্লাসগুলো প্রত্যন্ত অঞ্চলে ও একই সঙ্গে সব স্কুলে দেখাতে পারি। সেজন্য একটি শিক্ষা টিভি চ্যানেলজাতীয় কিছু করা যায় কি না, সেটা করা গেলে প্রত্যন্ত অঞ্চলের শিক্ষকরাও এই শেখানো পদ্ধতি থেকে উপকার পাবেন এবং শিক্ষার্থীরাও উপকৃত হবে।’ 
আরেকটি প্রস্তাব ছিল সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য একটি বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয় করার। যদিও এই প্রস্তাব রয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত আলোচনায়; কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়টি করে থাকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।
এ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় করা একটি প্রক্রিয়ার বিষয়। এ বিষয়ে প্রস্তাব এলে কীভাবে করা যায়, তা ভেবে দেখা হবে। 
সব জায়গায় শিক্ষার মান উন্নয়নের জন্য কতগুলো দক্ষতা অর্জন করা জরুরি মত দিয়ে তিনি বলেন, ‘বাংলা ও ইংরেজি পড়তে, লিখতে, বলতে ও শুনতে পারছে কি না; গণিত, বিজ্ঞান, আইসিটি, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসহ সাধারণ যে দক্ষতা অর্জন করা দরকার সেটুকু তারা যেন শিখতে পারে। মূল্যবোধগুলো যেন প্রাথমিক থেকে শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রোথিত করে দিতে পারি, যেন তারা ভালো মানুষ হতে পারে, সুনাগরিক হতে পারে- এই বিষয়গুলো নিয়ে আমরা কথা বলেছি। কোচিং বাণিজ্য বন্ধ করা, নোট বা গাইড বই যেন একেবারেই না থাকে, খেলার মাঠ যেন নষ্ট না হয়।’
শিক্ষার্থীদের যৌন হয়রানির বিষয় সজাগ দৃষ্টি রাখতে ডিসিদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে জানিয়ে দীপু মনি বলেন, ‘শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সর্বত্র জনসচেতনতা সৃষ্টি করা, কারিগরি শিক্ষা নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্ব দূর করে শিক্ষার্থীদের আকৃষ্ট করা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে জাতীয় সংগীত গাওয়া, জাতীয় পতাকা উত্তোলন করাসহ যত বিষয় শিক্ষার সঙ্গে সরাসরি সম্পৃক্ত, যেখানে ডিসিদের কাজ করার সুযোগ রয়েছে, সেসব বিষয়ে আমরা তাদের নির্দেশনা দিয়েছি।’
ওই সময় শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরীও উপস্থিত ছিলেন।
এই পাতার আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Powered by orangebd.com