বিপিএলে খেলতে চান উইলিয়ামসন

তামিমের নিয়মিত ফেইসবুক লাইভে দেশের সবচেয়ে জমজমাট ও জনপ্রিয় ক্রিকেট আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) খেলার ইচ্ছা পোষণ করেছেন নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। সুযোগ পেলে তিনি বিপিএলের আগামী আসরগুলোতে অংশ নিতে চান বলে জানিয়েছেন তারকা এই ক্রিকেটার।

বৃহস্পতিবার (২১ মে) দেশের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবালের সাথে লাইভ আড্ডায় যুক্ত হয়েছিলেন উইলিয়ামসন।

তামিমের অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেল ও ফেসবুক পেইজে সরাসরি সম্প্রচারিত হয় দুজনের কথোপকথন। এই শো চলাকালে উঠে আসে বিপিএলের প্রসঙ্গও।

এ সময় তামিম উইলিয়ামসনের কাছে জানতে চান, সময় সুযোগ পেলে তিনি বিপিএলে খেলতে আগ্রহী কি না।

তামিমের প্রশ্নের জবাবে ২০১৯ আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপের সেরা ক্রিকেটার জানান, সুযোগ পেলে বিপিএলে খেলতে চান তিনি।

উইলিয়ামসনের প্রতি তামিমের প্রশ্ন ছিলো, আমাদের কিন্তু নিজস্ব ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্ট আছে- বিপিএল। বিপিএল শুরুর আগে মানুষ তোমাকে নিয়ে কথা বলে। তারা চায় তুমি এখানে খেলো। তুমি অবসর পেলে কি বিপিএলে খেলতে আগ্রহী?

তামিমের প্রশ্নের জবাবে উইলিয়ামসন বলেন- সময় বের করতে পারলে আমি খুবই আগ্রহী। এটা দুর্দান্ত একটি টুর্নামেন্ট। অনেক ভালো কিছু হয়ে থাকে। দেখা যাক কী হয়।

কিউই অধিনায়ক উইলিয়ামসনের বিপিএলে এখনো খেলা না হলেও ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) ও ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (সিপিএল) মাঠ মাতিয়েছেন।

তারকা এই ক্রিকেটারকে ঘিরে ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগগুলোতে থাকে দারুণ আগ্রহ। যদিও সময়-সুযোগ করতে না পারায় সমসাময়িক অন্যান্য ক্রিকেটারের চেয়ে উইলিয়ামসন ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে খেলতে পারেন কমই।

দুজনের কথোপকথনের শেষ দিকে তামিম ফিরে গেলেন ক্রাইস্টচার্চ হামলার পরবর্তী সময়টায়। দুঃসহ সময়ে যখন তারা অনুভব করেছিলেন নিউ জিল্যান্ডের মানুষের আন্তরিকতার ছোঁয়া।

২০১৯ সালে ক্রাইস্টচার্চে যা হয়েছে, আমি সেটির গভীরে যেতে চাই না। তবে ঘটনার পর নিউ জিল্যান্ডের সবাই যেভাবে আমাদের দেখভাল করেছে, সবাই হোটেলে এসে জিজ্ঞেস করছিল আমরা ভালো আছি কিনা, ছোট ছোট আরও অনেক ঘটনা, সেসব আজীবন মনে রাখব। নিউ জিল্যান্ডের মানুষ যে ভালোবাসা তখন দেখিয়েছে, আমাদের দলের প্রতিটি সদস্য তা সবসময় মনে রাখবে।

তোমাদের প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে সবাই ছিলেন অসাধারণ। সেই সময়টায় তোমরা যা করেছো, সবকিছুর জন্য বাংলাদেশ দলের পক্ষ থেকে আমি তোমাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।

গত বছরের মার্চে বাংলাদেশ দলের নিউ জিল্যান্ড সফরের সময়ের ঘটনা সেটি। ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে নির্বিচারে গুলি চালিয়ে ৫১ জনকে হত্যা করেছিল অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক ব্রেন্টন ট্যারেন্ট। সেই দুই মসজিদের একটিতে নামাজ পড়তে যাচ্ছিল বাংলাদেশ দল। তখনই ঘটে ঘটনাটি।

যেতে একটু দেরি হওয়ায় অল্পের জন্য ক্রিকেটারদের পড়তে হয়নি হামলাকারীর গুলির সামনে। তবে ভয়াবহতা তারা দেখেছেন খুব কাছ থেকে। ঘটনার পর দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনা হয় বাংলাদেশ দলকে।

তামিমের কৃতজ্ঞতায় আপ্লুত উইলিয়ামসন তাকে জানালেন ধন্যবাদ।

ওই ঘটনা ছিলো খুবই ভয়ঙ্কর। তোমরা ও আরো যারা এই ঘটনার কাছাকাছি ছিলে, যাদেরকে সেই অভিজ্ঞতার ভেতর দিয়ে যেতে হয়েছে...এটা আমাদের গোটা দেশকেই গভীরভাবে নাড়িয়ে দিয়েছিল। অবিশ্বাস্যরকমের দুঃখজনক সময় ছিলো তা।

মন্তব্য করুন

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh