বরিশালে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় স্বামী ও শ্বশুর আটক

বরিশালের মুলাদী উপজেলায় গৃহবধূ মুন্নি আক্তারের রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় স্বামী ও শ্বশুরকে আটক করেছে পুলিশ।

আজ শুক্রবার দুপুরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতাল মর্গে মুন্নির ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। মুন্নি পটুয়াখালীর আমতলী উপজেলা সদরের বাসিন্দা নজরুল হাওলাদারের মেয়ে।

মুন্নির মামি সিমা বেগম জানান, গত আট মাস আগে মুলাদী উপজেলার আলিমাবাদ গ্রামের সিরাজ সরদারের ছেলে শামীম সরদারের সঙ্গে পারিবারিকভাবে মুন্নির বিয়ে হয়। বিয়ের পর শামীম কাজের সুবাদে ঢাকায় অবস্থান করলেও মুন্নি তার শ্বশুর-শাশুড়ির সঙ্গে স্বামীর বাড়িতেই থাকতেন। মুন্নি তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বাও ছিলেন।

তিনি জানান, মাঝে মধ্যেই মুন্নিকে নানা কারণে তার শ্বশুর বাড়ির লোকজন নির্যাতন করতেন। গত বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) মুন্নির শ্বশুর বাড়ি থেকে ফোন করে জানানো হয়, মুন্নির ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে অচেতন হয়ে পড়লে তাকে গৌরনদী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয়েছে। সেখানে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিসার জন্য তাকে শেবাচিম হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। পরে বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে চিকিসাধীন অবস্থায় মুন্নির মৃত্যু হয়। এরপর কৌশলে মুন্নির শ্বশুর বাড়ির লোকজন মরদেহ দাফনের জন্য বাড়িতে নিয়ে যায়।

মুন্নির পরিবারের অভিযোগ, পরিকল্পিতভাবে খাবারের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে মুন্নিকে হত্যা করা হয়েছে।

গৌরনদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম সরোয়ার সাম্প্রতিক দেশকালকে জানান, গৃহবধূ মুন্নির মৃত্যুর ঘটনায় বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি অপমৃত্যুর (ইউডি) মামলা করে তার শ্বশুর বাড়ির লোকজন। পরে মুন্নির পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে মৃত্যুর ঘটনা রহস্যজনক হওয়ায় ১৯ সেপ্টেম্বর (বৃহস্পতিবার) রাতেই মুন্নির মামা বাড়ি নোয়াপাড়া থেকে মরদেহ কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের স্বামী শামীম ও শ্বশুর সিরাজকে আটক করা হয়েছে বলেও জানান ওসি গোলাম সরোয়ার।

মন্তব্য করুন

সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার

© 2019 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh